বগুড়ায় যুবলীগ সন্ত্রাসী বাহিনীর ভয়ে এলাকা ছাড়ছে হিন্দু পরিবার!

বগুড়ায় ১৩ নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি আব্দুর রউফ ও তার বাহিনীর নির্যাতনে অনেক হিন্দু পরিবার এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। এর আগে পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী ওই যুবলীগ নেতাকে অস্ত্রসহ গ্রেফতার করা হয়। জামিনে বেরিয়ে এসে সে হিন্দুপাড়ার লোকজনকে জিম্মি করে প্রতি মাসে চাঁদা আদায় করছে। চাঁদা না দিলেই নির্যাতন চালানো হয়। এই অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে ওই গ্রামের শতাধিক পরিবারের লোকজন জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে। তবে তাকে এখন পর্যন্ত পুলিশ গ্রেফতার করতে পারেনি।

স্মারকলিপি দিতে আসা ব্যক্তিরা জানান, শাজাহানপুর উপজেলার গণ্ডগ্রাম মণ্ডলপাড়ার আফজাল হোসেন মণ্ডলের ছেলে আব্দুর রউফ ও তার বাহিনী নিয়মিত চাঁদাবাজি করছে। সে বগুড়া শহর যুবলীগের ১৩ নং ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি। তার বাহিনীর কাছে গণ্ডগ্রাম কর্মকারপাড়ার শতাধিক হিন্দু পরিবারের সদস্যরা জিম্মি হয়ে পড়েছে।

তারা জানান, গত এক বছরে রউফ ও তার বাহিনীর নির্যাতন এবং চাঁদাবাজিতে অতিষ্ঠ হয়ে নিবারন মহন্ত, নির্মল মহন্ত, মধু মহন্ত এবং বিপ্লব চন্দ্র রায় রাতের আঁধারে এলকা ছেড়ে চলে গেছে। সর্বশেষ গত সোমবার সন্ধ্যায় রউফ দলবল নিয়ে ওই পাড়ার বেনু চন্দ্র মহন্তের বাড়িতে যায়। সে ওই বাড়িতে কিছু

বিস্ফোরক রাখতে চাইলে বেনু মোহন্ত তাতে অস্বীকৃতি জানায়। এ কারণে তার মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে জীবননাশের হুমকি দেয়া হয়। বেনু চন্দ্র মহন্ত বলেন, আমরা এই অবস্থা থেকে নিস্তার চাই। আমাদের তো পালানোর কোনো জায়গা নেই। তাই প্রশাসনের কাছে বিচার চাইতে এসেছি।

শাজাহানপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল আলম জানান, আব্দুর রউফ পুলিশের তালিকাভুক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী। তার বিরুদ্ধে হত্যা, অস্ত্র ও মাদকদ্রব্য আইনসহ অর্ধডজন মামলা রয়েছে। কয়েক মাস আগে সন্ত্রাসী রউফকে অস্ত্রসহ আটক করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছিল। বর্তমানে সে জামিনে আছে। তার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি বা জোর করে বিস্ফোরক রাখতে বাধ্য করার বিষয়ে গণ্ডগ্রামের হিন্দু পরিবারের কেউ থানায় অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

যোগাযোগ করা হলে আব্দুর রউফ তার বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছে, শত্রুতাবশত প্রতিপক্ষ অস্ত্রসহ ধরে দিয়েছিল। গণ্ডগ্রামের হিন্দু পরিবারকেও তারা উত্সাহ দিয়ে মিথ্যা অভিযোগ করাচ্ছে। ওই গ্রামের কয়েকটি হিন্দু পরিবার কিছুদিন আগে ভারত গিয়েছে দাবি করে সে বলেছে, তারা কেন গিয়েছে সেটি তারাই জানে।
এদিকে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের জিম্মি করে চাঁদাবাজির ঘটনায় অভিযুক্ত বগুড়া শহর যুবলীগের ১৩ নং ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি আব্দুর রউফকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। বগুড়া জেলা যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক আমিনুল ইসলাম ডাবলু স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে তা জানানো হয়েছে।

সূত্র: আমার দেশ

Advertisements
This entry was posted in in Bangla and tagged , , , . Bookmark the permalink.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

w

Connecting to %s